রাজ্যে কবে থেকে চালু হবে দুয়ারে রেশন প্রকল্প? কবে থেকে বাড়িতে বসে পাবেন রেশন? জানিয়ে দিল নবান্ন!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আমরা জানি যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন আগামী 16 নভেম্বর থেকে চালু হতে চলেছে দুয়ারে রেশন প্রকল্প। এবার থেকে আর লাইনে দাঁড়িয়ে রেশন নেবার দিন শেষ বরং আপনার পর্যাপ্ত পরিমাণ রেশন পৌঁছে যাবে আপনার বাড়িতে । কিন্তু অধিকাংশ রেশন ডিলার ইতিমধ্যে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন ।তাদের দাবি ছিল যে এই প্রকল্প বাস্তবায়িত করতে গেলে যে পরিমাণ অর্থ খরচ হচ্ছে তাতে লাভ এর তুলনায় ক্ষতি হচ্ছে অনেকটা বেশি পরিমাণে।

রেশন ডিলার দের এই দাবি খারিজ করে দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। সেই অর্থে রাজ্যের বুকের শুরু হতে চলেছে দুয়ারে রেশন প্রকল্প ।কিন্তু রেশন ডিলারদের জয়েন্ট ফোরামের বক্তব্য ছিল, 15% পাইলট প্রজেক্ট এর মাধ্যমে তারা অংশগ্রহণ করেছিলেন সেই কাজ করতে গিয়ে তারা নানান সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন। অনেকেই দুয়ার রেশন প্রকল্প নিতে ইচ্ছুক নন ।পাশাপাশি জয়েন্ট ফোরামের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিশ্বম্ভর বসু বলেছেন,

“আমাদের যে অভিজ্ঞতা হয়েছে তা হলো অতিরিক্ত ব্যয় এবং ক্ষতি। বাড়িতে রেশন দেওয়ার ব্যাপারে যে ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছি আমরা সেই প্রাপ্য অর্থটুকু আমাদের ফিরিয়ে দেওয়া হোক। যারা শারীরিকভাবে সক্ষম নয় তাদের রেশন দিতে আমরা বাড়িতে যাব না হলে যাব না। ব্যাংক থেকে ধার করা টাকায় গাড়ি কিনব না। প্রায় তিন থেকে চার লাখ টাকা খরচ করে আমাদের পক্ষে গাড়ি কেনা কখনোই সম্ভব নয়।

” অপরদিকে খাদ্যমন্ত্রী রথীন ঘোষ জানিয়েছেন যে রেশন ডিলার দের সঙ্গে আজ বৈঠক এ বসবেন তিনি। পাশাপাশি প্রতি কুইন্টাল 50 টাকা কমিশন বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে এবং বায়োমেট্রিক হলে আরো 25 টাকা অতিরিক্ত অর্থাৎ প্রতি কুইন্টাল 75 টাকা দেওয়া হয়েছে যা রেশন ডিলাররা 200 টাকা করে চেয়েছিল। গাড়ি কেনার ব্যাপারে রথীন ঘোষ জানান যে সরকারের তরফ থেকে 1 লক্ষ টাকা করে আর্থিক অনুদান দেওয়া হবে এবং এই টাকার মধ্যে গাড়ি কেনার ব্যবস্থা করে দেবে সরকার।

যদি কেউ অতিরিক্ত টাকা দিয়ে গাড়ি কিনে তাহলে সেই গাড়ির মালিক হবেন তিনি। শুধুমাত্র রেশন কাজের জন্য নয় আরো অন্যান্য কাজে ব্যবহার করতে পারবেন তিনি।সে ক্ষেত্রে রাজ্য সরকার কোনো রকম কোনো বাধা দেবে না। এই মুহূর্তে এই প্রকল্প চালু হবে নাকি নানান ধরনের সমস্যার জন্য থমকে যাবে।সে বিষয়ে রয়েছে সংশয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button