ধনী হতে চান? জীবনে কোনোদিন করবেন না এই 10 টি ভুল! জেনে নিন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :-আপনিও কি খুব কম সময়ে বড়লোক হতে চান। কিন্তু এই দশটি ফুল আপনাকে বড়লোক হতে বাধা দিচ্ছে । সেটা কি আপনার জানা আছে যদি জানো না থেকে থাকে তাহলে জেনে নিন আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে কারণ এই ভুলগুলো যদি আপনি শুধরে নিতে পারেন তবে কিন্তু একজন সফল ধনী ব্যক্তি হয়ে উঠতে পারবেন আপনি অল্প সময়ের মধ্যে।

গাধার খাটুনি :-আমরা শিখেছি পরিশ্রম করলে জীবনে উন্নতি করা যায় । জীবনে উন্নতির চাবিকাঠি হচ্ছে একমাত্র পরিশ্রম । কিন্তু এটা পরিপূর্ণ নয় । এমনটা যদি হয় যে আপনি প্রচুর খাটাখাটনি করলেন তবুও কোটিপতি হলেন না এরকম ঘটনা আশেপাশে অনেক জায়গাতেই দেখা যায় ।এ সব থেকে ভালো উপায় হচ্ছে পরিশ্রম করার সাথে সাথে বুদ্ধির কাজে লাগান । অর্থাৎ কোন কাজটি করলে আপনার বাড়িতে উচ্চমানের ফসল আসবে সে বিষয়ে চিন্তা করে তবে কাজ এ নামুন ।

সঞ্চয় না করা:- আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই রয়েছে যারা টাকা-পয়সা হয়ত খুবই অল্প বয়সে উপার্জন করতে শুরু করেছে ।কিন্তু তারা বিনিয়োগ করছে বেশি পরিমাণ অর্থাৎ ব্যয় করছে অত্যধিক মাত্রায় ।কখনো বন্ধুদের সাথে কখনো নিজস্ব প্রসাধনীতে টাকা-পয়সা খরচ করছে তাই সঞ্চয় করা অতি অবশ্যই জানতে হবে।

বিশ্বাস – ধনসম্পদ আপনার ভাগ্যে নেই :সিবোল্ড বলেন, ‘বেশিরভাগ মানুষ বিশ্বাস করে যে, ভাগ্যে না থাকলে ধনী হওয়া যায় না, তবে আসল সত্য হলো, আপনি যদি পুঁজিবাদী দেশের নাগরিক হয়ে থাকেন এবং আপনার যদি কোনো বিনিময়যোগ্য ‘সেবা’ দেয়ার সামর্থ্য থাকে তাহলেই আপনার পূর্ণ অধিকার আছে ধনী হওয়ার। সুতরাং আজ থেকেই নিজেকে প্রশ্ন করা শুরু করুন, কেন আপনি ধনী হতে পারবেন না?’ আর বড় বড় চিন্তা করা শুরু করুন, ধনবান ব্যক্তিরা সব সময় বড় লক্ষ্যে পৌঁছাতে চান আর সেই অনুসারে চিন্তাগুলোকে আবর্তিত করেন।

খরচ করার পর বাকি অংশ সঞ্চয়:- আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই আছেন যারা পারিশ্রমিক করার পর যে টাকা পয়সা উপার্জন করে সে টাকা পয়সা দিয়ে বাড়ির প্রিয়জনদের জন্য কোন কিছু কেনাকাটা নিয়ে যায় বা টাকা পয়সা খরচ করে দেয় কিন্তু ধনী ব্যক্তিদের মধ্যে বাড়ির জন্য কিছু না কিছু কেনার পর অবশিষ্ট যেটা রয়েছে সেটা খরচ না করে সঞ্চয় করুন ।

আরাম বলয়ের আলসে আপনি :আপনি যদি সুখ সম্পদ আর সাফল্য চান তাহলে নিশ্চিত নিরাপদ আরাম বলয় ছেড়ে বের হতে হবে। বিশেষ করে ধনী ব্যক্তিরা অনিশ্চয়তার মধ্যেই সুখ খুঁজে নেন। সিবোল্ড বলেন, মধ্যবিত্তদের জীবনের সবকিছুর পেছনেই এই উদ্দেশ্যগুলো কাজ করে, তা হলো- শারীরিক, মানসিক এবং ইন্দ্রীয় সুখ।

সারা পৃথিবীর সকল চিন্তাবিদরাই জানেন যে, ধনী হওয়া সহজ নয় এবং সবাই এক বাক্যে স্বীকার করবেন যে, আরামপ্রিয়তা সকল উন্নতির পথকে ধ্বংস করে দিতে পারে। আসলে ধনীরা জানেন যে, কিভাবে ভয়কে অতিক্রম করে ঝুঁকির জন্য প্রস্তুতি নিতে হয় এবং ক্ষতিকে সীমার মধ্যে রেখে কিভাবে সর্বোচ্চ লাভবান হওয়া যায়। আর এটাই তাদের সাফল্যের রহস্য।

বিনিয়োগে আগ্রহ নেই :-আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই রয়েছে যারা হয়তো টাকা-পয়সাও উপার্জন করেন ।কিন্তু বিনিয়োগ করে না কোথাও । কিন্তু এই বিনিয়োগ আপনার জীবনে এক দারুণ অধ্যায় হয়ে ফেরত আসতে পারে। সমীক্ষা বলছে যেধনী ব্যক্তিরা যে পরিমাণ টাকা পয়সা উপার্জন করে তার কুড়ি শতাংশ বিনিয়োগ ব্যয় করে এই অভ্যাসটা আপনাকে নিজেদের মধ্যে নিয়ে আসতে হবে স্বাধীনভাবে টাকা পয়সা উপার্জন করতে হবে তার পাশাপাশি বিনিয়োগের উপর ভরসা রাখতে হবে ।

নিজের কোনো স্বপ্ন নেই :আপনি যদি সফল হতে চান তাহলে কাজকে ভালোবাসতে হবে, তার মানে আপনার নিজস্ব স্বপ্ন থাকতে হবে, লক্ষ্য থাকতে হবে। নিজের চেষ্টায় যারা ধনবান হয়েছেন তাদের নিয়ে পাঁচ বছর ধরে গবেষণা করেছেন থমাস কোরল নামের একজন গবেষক। তিনি বলেন, বেশিরভাগ মানুষই অন্যের স্বপ্নের জন্য কাজ করে এবং এটাই তাদের বড় ধরনের ভুল।

নিজের পছন্দের পেশায় এসেও যখন অন্যের স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য কাজ করতে হয় তখন বিতৃষ্ণায় হাঁপিয়ে ওঠা ছাড়া আর উপায় থাকে না।’ তিনি আরো বলেন, ‘অভ্যাস সহ অনেক কিছু পরিবর্তনের চেষ্টা করতে হবে। তা নাহলে অতৃপ্তি এবং অসন্তোষ আপনার সবকিছুতে প্রতিফলিত হবে। অভাব অনটনেই আপনার দিন পার হবে। আসলে, সফল হওয়ার জন্য একটা গভীর ইচ্ছা দরকার আর সেই ইচ্ছাটা খুব সহজে ধরা দেয় না।’

ঘন্টা হিসেবে পারিশ্রমিক:-অনেকে কাজকর্ম করে সেখান থেকে টাকা পয়সা উপার্জন করে । কিন্তু যে জিনিসটি সবথেকে বেশি মাত্রায় পরিলক্ষিত হয় সেটি হচ্ছে ঘন্টা হিসেবে পারিশ্রমিক নেন অর্থাৎ মাস কিংবা দিন হিসেবে অনেকে পারিশ্রমিক গ্রহণ করে কিন্তু এটা সম্পূর্ণ ভুল। ধনী ব্যক্তি লভ্যাংশ হিসেবে অর্থ উপার্জন করে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button