সরকারি হাসপাতালে ভর্তি হতে গেলেই এবার থেকে লাগবে এই নথি! নতুন সিদ্ধান্ত নিলো রাজ্য! জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- এবার থেকে সরকারি হাসপাতালে ভর্তি হতে গেলে অতি অবশ্যই লাগবে এই নথি । নইলে পাবেন না চিকিৎসা আমরা জানি যে পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা ভোটের আগে রাজ্য সরকার প্রতিটি পরিবারের জন্য বিনামূল্যে চিকিৎসা করানোর একটা প্রকল্প গ্রহণ করেছিলেন যার নাম স্বাস্থ্য সাথী কার্ড। এই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর আওতায় প্রতিটি পরিবারকে 5 লক্ষ টাকা করে চিকিৎসার জন্য সরকারি অনুদান দেওয়া হচ্ছে।

ইতিমধ্যে প্রায় দুই কোটি পরিবার এই স্বাস্থ্য সাথী আওতায় চলে এসেছে অর্থাৎ আপনি বলতে পারেন যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই প্রকল্প সফল হয়েছে ব্যাপক মাত্রায়। তবে নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এমনটা জানা যাচ্ছে যে এবার থেকে কোন ব্যক্তি যদি সরকারি হাসপাতালে ভর্তি হতে চান তাহলে অতি অবশ্যই তাকে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড দেখাতে হবে ।নইলে কিন্তু চিকিৎসার পরিসেবা পাওয়া যাবে না।গত রবিবার স্বাস্থ্য অধিকর্তা আজয় চক্রবর্তী জানিয়েছেন,

এখন থেকে যেকোন সরকারি হাসপাতালে ভর্তি হতে হলে আপনাকে অবশ্যই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড দেখাতে হবে। এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা হবার পর সাধারণ মানুষ গুলো প্রশ্ন জেগেছে যে তাদের কাছে যে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড রয়েছে সেটি কোন কারণে ভুয়ো নয় তো? যাদের স্বাস্থ্য সাথী কার্ড তার কাছে এসে পৌঁছায়নি তো বা যাদের কার্ড নেই তারা কি চিকিৎসা পাবে না ?এ ব্যাপারে একাধিক প্রশ্ন আছে বিভিন্ন মহল থেকে।

এই উত্তরে স্বাস্থ্য অধিকর্তা জানিয়েছেন, স্বাস্থ্য সাথী কিংবা অন্য যেকোন সরকার প্রদত্ত স্বাস্থ্য কার্ড নিয়ে হাসপাতালে গেলে তবেই পাওয়া যাবে বিনামূল্যে চিকিৎসা। নতুবা পাওয়া যাবে না, তবে ভয়ের কিছু নেই। যাদের স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নেই তাদের জন্য সরকারি হাসপাতালেই নির্দিষ্ট কিয়স্ক থেকে এই কার্ড করে দেওয়া হবে। সাধারণত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই স্বাস্থ্য সাথীর জন্য আলাদা একটি তহবিল তৈরি করতে চাইছেন।তবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সিদ্ধান্ত আগামী দিনে প্রচুর মানুষকে বিনামূল্যে চিকিৎসা খরচ প্রদান করবে সে ব্যাপারে নিশ্চিত অনেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button