পোস্ট অফিস দিচ্ছে দারুন অফার! দৈনিক মাত্র 95 টাকা করে জমিয়ে পেয়ে যান 14 লাখ টাকা! জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :-ভারতবর্ষে যে সমস্ত জায়গা তিন ব্যাংকের পরিষেবা পৌঁছাতে পারেনি সেই জায়গাতে ব্যাপক পরিমাণে জনপ্রিয়তা সৃষ্টি করেছে পোস্ট অফিস । তার পাশাপাশি এখন বর্তমান সময়ে গ্রাম অঞ্চল ছাড়াও শহর অঞ্চলের একাধিক জায়গাতে পোস্ট অফিসের বিনিয়োগ করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছে মানুষজন ।তার অন্যতম একটি কারণ হচ্ছে অধিক পরিমাণে সুদ এবং সুরক্ষিত টাকা পাশাপাশি ভাল অঙ্কের টাকা রিটার্ন ।

পোস্ট অফিসের এই প্রকল্পের নাম হচ্ছে গ্রামীণ সুমঙ্গল বীমা যোজনা । মূলত গ্রামীণ অঞ্চলে মহিলাদেরকে এবং মানুষজনদের কে এই বীমা সম্পর্কে অবগত করার জন্য এবং তাদের জীবন শেষ বয়সে এসে সুরক্ষিত করার জন্য এই প্রকল্প জারি করা হয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে ।একাধিক লোভনীয় অফার রয়েছে এই প্রকল্পে ।

যেমন ধরুন যদি প্রতিদিন আপনি ৮৫ টাকা করে এই স্কিমের আওতায় টাকা রাখেন তাহলে নির্দিষ্ট সময় পর ১৪ লক্ষ টাকা তে পরিণত হবে এবং এর সময়কাল নিতান্তই অন্যান্য থেকে অনেকটাই কম । কম সময় আপনি অধিক পরিমাণ টাকা উপার্জন করতে পারবেন । ১৯৯৫ সালে প্রথমবারের মতো এই প্রকল্পটি জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

সর্বোচ্চ ১৫-২০ বছর পর্যন্ত এই প্রকল্পটির আপনি করতে পারেন । এবং ম্যাচিওর হওয়ার আগে তিনবার আপনি টাকা পাবেন । ম্যাচিউরিটি শেষ হয়ে গেলে সম্পূর্ণ টাকাটা পেয়ে যাবেন আপনি । তার পাশাপাশি গ্রাহকের যদি কোনো কারণে আকস্মিক মৃত্যু হয় তাহলে সে ক্ষেত্রে রয়েছে বিশেষ সুবিধা । অর্থাৎ বোনাসের সুবিধা দেওয়া হচ্ছে এই প্রকল্পের আওতায়।

এই প্রকল্পের অধীনে নিজেকে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য আপনার বয়স অবশ্যই হাজার ১৯ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যে ভর্তি হতে হবে । ২০ বছর পলিসি নেওয়ার সর্বাধিক বয়সসীমা ৪০ বছর নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে, সর্বাধিক বীমার পরিমাণ ২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত পাওয়া যায়।এই প্রকল্পে প্রতি বছর ৪৮ হাজার টাকার বোনাস পাওয়া যায়। এক বছরে সাম অ্যাসিওর্ডের ১ লক্ষ টাকার বোনাস ৩৩৬০০ টাকা।

২০ বছর ধরে,যা দাঁড়াবে ৬.৭২ লাখ টাকা। ২০ বছরে, আপনি বাকি ২.৮ লক্ষ টাকাও পাবেন। সমস্ত অর্থ যোগ করে আপনি ২০ বছরে মোট ১৯.৭২ লক্ষ টাকা পাবেন। তাহলে আর চিন্তা ভাবনা কিসের আজকেই পোস্ট অফিসের খুলে ফেলুন একটি অ্যাকাউন্ট এবং অন্তর্ভুক্ত হন এই প্রকল্পের আওতায় ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button