ই-শ্রম কার্ড বানিয়েছেন? এই কাজটি করলেই পেয়ে যাবেন প্রতিমাসে ১,০০০ থেকে ৫,০০০ টাকা! রইল ভিডিওসহ বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- ইতিমধ্যে গোটা দেশজুড়ে ই শ্রম কার্ড তৈরি করার জন্য তাড়াহুড়ো লেগে গেছে। দেশের প্রায় প্রতিটি মানুষ এই সমস্ত সুযোগ সুবিধাগুলি পাবার জন্য উঠে পড়ে লেগেছে। এই কার্ডের মাধ্যমে একাধিক প্রকল্প সুযোগ-সুবিধা প্রদান করা হচ্ছে অসংগঠিত শ্রমিকদের কে। এবং তাদেরকে সরকারি ছত্রছায়ায় এনে সাহায্য করাই হচ্ছে এই কার্ডের মুল উদ্দেশ্য। তবে আপনি কি জানেন যে আপনি সামান্য কিছু অর্থ বিনিয়োগ করে এক হাজার থেকে 5 হাজার টাকা পেনশন পেতে পারেন প্রতিমাসে এই প্রকল্প সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে অবশ্যই প্রতিবেদনটি সম্পূর্ণ পড়ুন।

প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী তত্ত্বাবধানে এই প্রকল্প গোটা দেশজুড়ে জারি করা হয়েছে এবং এই প্রকল্পের নাম হচ্ছে অটল পেনশন যোজনা অর্থাৎ আপনি বুঝতে পারছেন যে এটি একটি পেনশন প্রকল্প। এই প্রকল্পের মাধ্যমে আপনি প্রতি মাসে পাঁচ হাজার টাকা করে পেনশন পেতে পারেন তবে অবশ্যই বিভিন্ন স্ল্যাব রয়েছে অর্থাৎ আপনি হাজার টাকা থেকে শুরু করে 5000 টাকার মধ্যে পেনশন পেতে পারেন আপনি কত টাকা বিনিয়োগ করছেন তার উপর নির্ভর করছে আপনার পেনশনের পরিমাণ। অবশ্যই তার জন্য আপনাকে কিছু শর্ত মেনে চলতে হবে।

এবং এটি মূলত তাদের জন্যই করা হয়েছে যাদের নির্দিষ্ট বয়সে এসে দেখাশোনা করার মতন লোক থাকে না। তাই তারা নিজেরাই টাকা পয়সা দিয়ে নিজেদের সংসার চালিয়ে নিতে পারবেন । যত কম বয়সে এই যোজনার সঙ্গে যুক্ত হবেন তত বেশি লাভবান হবেন৷ যদি কোনও ব্যক্তি ১৮ বছর বয়সে এই যোজনায় ইনভেস্ট করা শুরু করেন এবং ৬০ বছর বয়সের পর ৫০০০ টাকা পেনশন পেতে চান তাহলে মাসে ২১০ টাকা ইনভেস্ট করতে হবে৷

অর্থাৎ এই যোজনায় প্রতিদিন ৭টাকা করে জমা করে প্রতি মাসে পেয়ে যাবেন ৫০০০ টাকা। ৬০ বছর পর মাসে ১০,০০০ টাকা করে পেনশন পেতে শুরু করবেন। তার পাশাপাশি ৩৯ বছরের কম বয়সের স্বামী-স্ত্রী আলাদা আলাদা এই স্কিমের লাভ নিতে পারবেন৷ মাসে ১০০০ টাকা পেনশনের জন্য কেবল ৪২ টাকা জমা করতে হবে মাসে ৷ ২০০০ টাকার জন্য ৮৪ টাকা, ৩০০০ টাকার জন্য ১২৬ টাকা এবং ৪০০০ টাকার জন্য ১৬৮ টাকাএমনকি আপনি জানলে অবাক হবেন যে ইনকাম ট্যাক্স দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত ছাড় পাওয়া যাবে এই যোজনার ক্ষেত্রে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button