পরনে জিন্স, পাড়ার কালী পুজোয় পথচলতি রাস্তার মধ্যেই জনপ্রিয় হিন্দি গানে উ-দ্দা-ম নাচ সুন্দরী তরুণীর, ভাইরাল ভিডিও!

পরনে জিন্স, পাড়ার কালী পুজোয় পথচলতি রাস্তার মধ্যেই জনপ্রিয় হিন্দি গানে উ-দ্দা-ম নাচ সুন্দরী তরুণীর, ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- পাড়ার পুজো হোক বা যে কোন পুজো মণ্ডপ আমরা নাচতে ভালোবাসি এবং বিভিন্ন ধরনের নাচ হয়ে থাকে । তবে মূলত ভাসান নাচ এবং ধুনুচি নাচ ভারতীয় বাজারে ব্যাপক জনপ্রিয়তা ।তার পাশাপাশি তারা যদি বাঙালি হন তাহলে তো কোন কথাই নেই । কারণ এমনটা মনে করা হয় যে বাঙালিরা ধুনুচি নাচের সর্বশ্রেষ্ঠ এবং এই বাঙালির সবথেকে জনপ্রিয় জাতীয় পুজো হল দুর্গাপুজো। একটা বছর ধরে সমগ্র বাঙালি জাতির অপেক্ষা করে থাকে এই চারটে দিনের জন্য ।

তাই সেই চারটে দিন বছরের বাকি দিনের তুলনায় সম্পূর্ণ আলাদা হবে । এমনটা বলা যেতেই পারে। বছরের এই চারটে দিনে থাকেনা কোন পিছুটান বাধ্যবাধকতা । নিজের মতন ভাবে ছেলেমেয়ে যুবক-যুবতী বা বাড়ির অন্যান্য সকল এরা ঘোরাফেরা আনন্দ করতে পারে ।একান্নবর্তী পরিবারে ক্ষেত্রে দেখা যায় বিশেষ চিত্র। সেখানে বছর পর একসাথে আনন্দ উপভোগ করতে দেখা যায় বাড়ির সকলকে । কিন্তু পাড়ার বা এলাকার পুজো মণ্ডপের দৃশ্যটাও খারাপ নয় ।

কারণ সেই এলাকাবাসীরা বা পড়ার বাসিন্দারা সকলে মিলে অতি আনন্দের সাথে দুর্গাপুজো পালন করে থাকে । শুধুমাত্র পুজো হল ঢাকা বাজলো, ঘন্টা বাজলো আর বাড়ি চলে গেলাম তেমন কিন্তু হয় না। যদিও এই চিত্র কোন জায়গাতে কাম্য নয় । তার পাশাপাশি পুজো মণ্ডপের সামনে বসে আড্ডা দেওয়া গান করা নাচ করা সমস্ত কিছুই চলতে থাকে পাল্লা দিয়ে। এবং কখনও কখনও সেই সমস্ত ঘটনা গু-লি ভাইরাল হয় নেট মাধ্যমে । যেমনটা হলো এবার ।

সম্প্রতি একটি ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে ইউটিউবে সেখানে দেখা যাচ্ছে যে এক তরুণী মণ্ডপে উপস্থিত থাকার সকলের সামনে দুর্দান্ত ভঙ্গিমায় নাচ করে চলেছেন জনপ্রিয় একটি হিন্দি গানের সাথে। এবং ভিডিওটি দেখলে আপনি বুঝতে পারবেন যে সেই মণ্ডপটি কোন একটি রাস্তার ধারে অবস্থিত । কারণ অনবরত তার আশে পাশ দিয়ে পেরিয়ে যাচ্ছিল যানবাহন । এবং ছোট একটি জায়গার মধ্যে সে মণ্ডপ সাজানো হয়েছিল। সেখানে উপস্থিত রয়েছে এলাকার সমস্ত বাসিন্দারা । এবং তারই মাঝে ওই যুবতী নৃত্য পরিবেশন করেছেন ।পরনে ছিল লাল রঙের একটি পোশাক ও জিন্সের প্যান্ট । ইতিমধ্যে তার সেই নাচ মন কে-ড়েছে মানুষদের ।


Leave a Reply

Your email address will not be published.