“আমি এখন সেলিব্রেটি, বাদাম বিক্রি করতে লজ্জা লাগবে!” -বললেন ভুবন বাদ্যকর! ঝড়ের বেগে ভাইরাল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন:এই সোশ্যাল মিডিয়া একদিকে যেমন নিজের পরিচিতি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে ঠিক তেমনভাবেই মুহূর্তে সেই পরিচিতি নষ্ট করে দিতে পারে। এর আগেও বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে আমরা এই উদাহরণ দেখতে পেয়েছি।

সোশ্যাল মিডিয়া মানুষের কাছে বর্তমান সময়ে এমন একটি প্লাটফর্ম যা মুহূর্তেই আমাদের জীবনের সঙ্গে জড়িয়ে গিয়েছে। সম্প্রতি বিগত বেশ কিছুদিন ধরেই নেট মাধ্যমে ট্রেন্ডিং সং হিসেবে উঠে এসেছে ভুবন বাদ্যকরের গাওয়া কাঁচা বাদাম গান।সামান্য বাদাম বিক্রেতা থেকে মুহূর্তেই সোশ্যাল মিডিয়ার সেনসেশনে পরিণত হয়েছেন তিনি। আর তাতেই ঘটেছে বিপত্তি।

প্রসঙ্গত বর্তমান সময়ে ফেসবুক কিংবা ইনস্টাগ্রাম খুললেই এই কাঁচা বাদাম গানের তৈরি নানা ধরনের ভিডিও আমরা দেখতে পাচ্ছি। সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে টলিউড এবং বলিউডের সেলিব্রিটিরাও এই গানে নানা ধরনের ভিডিও বানাচ্ছেন। দেশ থেকে বেরিয়ে সুদূর বিদেশেও পৌঁছে গিয়েছে এই গান।

এমতাবস্থায় আচমকাই জনপ্রিয়তা এতটাই বৃদ্ধি পেয়েছে যে রাজ্য পুলিশ এবং অন্যান্য বিভিন্ন সংস্থার তরফ থেকে তাকে বিশেষ সম্মান দেওয়া হয়েছে। এসব কিছুর মাঝেই তিনি একটি অদ্ভুত ঘটনা ঘটিয়ে ফেলেছেন। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন তিনি আর বাদাম বিক্রি করবেন না কারণ তিনি সেলিব্রিটি হয়ে গিয়েছেন।

বাদাম কাকুর মুখ থেকে এই কথা শোনার পর তাকে রীতিমত ঘিরে ধরেছেন নেটিজেনদের একাংশ।যে বাদাম বিক্রি করে তিনি এই জায়গায় উঠে এলেন সেই বাদাম বিক্রি কেই তিনি লজ্জা বলে মনে করছেন। নেটিজেনদের একাংশ ইতিমধ্যেই তাকে নিয়ে সমালোচনা করা শুরু করে দিয়েছেন।

অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করে তাকে উপদেশ দিয়েছেন এভাবে চলতে থাকলে ধীরে ধীরে তার অবস্থা রানু মন্ডল এর মতই হবে। প্রসঙ্গত অনেকটা ভুবন বাবুর মতই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে উঠে এসেছিলেন রানু মন্ডল। রানাঘাট স্টেশন এর বাসিন্দা ছিলেন তিনি।

তার জনপ্রিয়তা এতদূর পৌঁছেছিল যে বলিউডের জনপ্রিয় সংগীত পরিচালক হিমেশ রেশমিয়ার সঙ্গে গান গাওয়ার সুযোগ পান তিনি।কিন্তু এই সময় ধীরে ধীরে তার মধ্যে এতটাই অহংকার বাড়তে থাকে যে কালের নিমেষে তিনি হারিয়ে যান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button