দারুন সুখবর! কমেছে ভোজ্যতেলের দাম! হাসি ফুটেছে মধ্যবিত্তদের মুখে। জেনে নিন কি বলছে সরকার!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-কৃষির দিক থেকে আমাদের ভারতবর্ষে অনেকখানি এগিয়ে রয়েছে দেশের মানুষের চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি অন্যান্য দেশেও কিন্তু আমাদের উৎপাদিত পণ্য রপ্তানি করা হয় কিন্তু যদি কথা বলা হয় ভোজ্য তেলের উপর তাহলে কিন্তু ভারত অনেকখানি অক্ষম । ভারত ভোজ্য তেলের বৃহত্তম আমদানিকারকদের মধ্যে একটি দেশ।

দেশের অভ্যন্তরীণ খাওয়ার তেলের উৎপাদন দেশবাসীর চাহিদা মেটাতে অক্ষম। তাই ভোজ্যতেলের প্রায় ৫৬-৬০ শতাংশ আমদানির মাধ্যমে পূরণ করা হয়। উপভোক্তা বিষয়ক মন্ত্রকের তথ্য বলছে, বিশ্বে উৎপাদন হ্রাস ও রফতানিকারক দেশগু-লির কর বৃদ্ধির কারণেই ভোজ্যতেলের আন্তর্জাতিক দাম বেড়েছে । তবে এবার স্বস্তির খবর দিল গ্রাহকদের উদ্দেশ্যে।

সম্প্রতি উপভোক্তা বিষয়ক মন্ত্রীকে জানানো হয়েছে যে বহু নামিদামি সংস্কার রয়েছে বা কোম্পানির রয়েছে যারা ভোজ্য তেলের উপর প্রতি লিটার পিছু 5 থেকে কুড়ি টাকা দাম কমিয়েছে বিগত কয়েকদিনে লক্ষ্য রাখলে আমরা এমন টা দেখতে পাবো পেট্রোল এবং ডিজেলের পাশাপাশি কিন্তু রান্নার তেলের দাম প্রতিনিয়ত ছিল কিন্তু গত আগস্ট মাস থেকে এসে দাম কমতে শুরু করে এবং বর্তমানে ভোজ্য তেলের উপর প্রতি লিটার পিছু পাশ থেকে কুড়ি টাকা কমানো হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে সরকারের তরফ থেকে ।

উপভোক্তা বিষয়ক মন্ত্রকের তথ্য বলছে, মঙ্গলবার সারা ভারতে বাদাম তেলের গড় খুচরা মূল্য ছিল প্রতি কেজি ১৮০ টাকা। সেখানে সরষের তেলের দাম ছিল প্রতি লিটারে ১৮৪.৫৯ টাকা। সয়া তেলের দাম হয়েছে ১৪৮,৮৫ টাকা। সূর্যমুখী তেল ১৬২.৪ টাকা ছাড়াও প্রতি কেজি পাম অয়েলের দাম হয়েছে ১২৮.৫ টাকা।

তবে শুধু এই কোম্পানিগুলিই নয়, জেমিনি এডিবলস অ্যান্ড ফ্যাট ইন্ডিয়া, হায়দ্রাবাদ, মোদি ন্যাচারালস, দিল্লি, গোকুল রি-ফয়েল অ্যান্ড সলভেন্ট, বিজয় সলভেক্স, গোকুল এগ্রো রিসোর্সেস ও এনকে প্রোটিনও এই দাম কমিয়েছে। অন্তত তেমনই দাবি করেছে উপভোক্তা বিষয়ক মন্ত্রক ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button