“আগে যতবার লাইভ করেছি বাবা সবসময় পাশে ছিলেন” – বাবার কথা মনে পরতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় লাইভ চলাকালীন কান্নায় ভেঙে পড়লেন অভিনেত্রী রচনা ব্যানার্জী!

নিজস্ব প্রতিবেদন:রচনা ব্যানার্জি এবং দিদি নাম্বার ওয়ান শো যেন একে অপরের পরিপূরক । বিগত 10 বছর ধরে সফলতার সাথে দিদি নাম্বার ওয়ান এর সঞ্চালনায় করে আসছেন অভিনেত্রী রচনা ব্যানার্জি । কিন্তু কিছুদিন আগের তিনি বড় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিলেন। সরে দাঁড়িয়েছেন সঞ্চালিকা এর ভূমিকা থেকে ।

তার কারণ আমাদের হয়তো কমবেশি প্রত্যেকেরই জানা । আমরা প্রত্যেকেই জানি যে ইতিমধ্যে রচনা ব্যানার্জি বাবা মারা গিয়েছেন । তাই মানসিকভাবে বিপর্যস্ত এই অবস্থাতে তিনি কোন রকম ভাবেই শুটিংয়ে মন দিতে পারছেন না । তাই আপাতত সঞ্চালনার দায়িত্ব নিজের কাধ থেকে নামিয়ে নিতে চেয়েছিলেন তিনি।

দিদি নাম্বার ওয়ানে রচনা ব্যানার্জি জায়গায় আনা হয়েছিল অন্য একজনকে ।কিন্তু দর্শকেরা সেটা মেনে নিতে পারছিল না ।যার ফলে একাধিকবার অনেক ধরনের মন্তব্য পরিলক্ষিত হচ্ছিল কমেন্ট সেকশনে ।এবং তারই জেরে রচনা ব্যানার্জি কে পুনরায় দিদি নাম্বার ওয়ানে সঞ্চালিকা কাজে নিযুক্ত করতে বাধ্য হল । এবং এক প্রকার এমনটাও বলা যেতে পারে যে রচনা ব্যানার্জি নিজে আবার দিদি নাম্বার ওয়ানে সঞ্চালিকা দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিলেন ।শুধুমাত্র তার অনুরাগীদের কথা চিন্তা করে । কিন্তু বাবা চলে যাওয়ার যন্ত্রণা কোন রকম ভাবে তিনি ভুলতে পারছেন না। একাধিকবার লাইভ ভিডিওর মাধ্যমে সে সে দুঃখ এবং কষ্ট অনুরাগীদের সাথে শেয়ার করে নিচ্ছেন রচনা ব্যানার্জি।

সাম্প্রতি একটি লাইভ ভিডিও করেন রচনা ব্যানার্জি । সেখানে তিনি অনুরাগীদের সাথে আড্ডা দিতে আসেন কিন্তু হঠাৎ করে বাবার কথা বলতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি ।তিনি বলেন যে তিনি যখনই এর আগে লাইভ করতেন বাবা তাকে মানসিক সমর্থন করত এবং পাশের ঘর থেকে বলতেন যে যে কাজটি করবেন সেটি মন দিয়ে করবে ভালোবেসে করবে ।কি কাজ করছ সেটা ভাবার দরকার নেই ।কিন্তু বাবা নেই আজকে। এই কষ্টটা তারা খুব ভালো করে বুঝতে পারছে যাদের বাবা হয়তো রয়েছে কিংবা নেই কথা বলতে গিয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়লেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button