বাড়িতে ফেলে দেওয়া প্লাস্টিক বতলে চাষ করুন পুদিনা গাছের। কয়েক মাসেই গাছ হবে ঝাকড়া! দেখুন বিস্তারিত!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-বর্তমান সময়ে গাছের অভাবে আমাদের পরিবেশ প্রতিনিয়ত দূষিত হয়ে পড়ছে। মানুষ সবসময় নিজেদের চাহিদা পূরণের জন্য এই গাছকে ব্যবহার করে থাকেন।পাশাপাশি গাছ আমাদের শ্বাস প্রশ্বাস চালানোর জন্য প্রয়োজনীয় অক্সিজেনের যোগান দেওয়ার পাশাপাশি অন্যান্য নানান ধরনের সাহায্য করে।

কিন্তু যখনই এই গাছের রক্ষণাবেক্ষণের প্রশ্ন আসে বেশিরভাগ মানুষ একেবারে নিশ্চুপ হয়ে যান। ক্রমাগত এই রক্ষণাবেক্ষণের অভাবেই বিশ্ব উষ্ণায়ন বেড়ে চলেছে যার প্রভাবে বাড়ছে পরিবেশ দূষণ। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদন এর মাধ্যমে আমরা আলোচনা করব কিভাবে আপনারা খুব সহজেই বাড়িতে জায়গা কম থাকলেও ছোট প্লাস্টিকের বোতলে বা অল্প জায়গার মধ্যে গাছের চারা লাগিয়ে তা বড় করে তুলতে পারেন।

এ পদ্ধতিতে আপনারা খুব সহজে উপার্জনও করতে পারবেন। এই প্রসঙ্গে আমরা পুদিনা গাছের কথা বলব। প্রথমেই এই গাছের সম্বন্ধে কিছু জেনে নেওয়া যাক। এটি একটি গুল্ম জাতীয় উদ্ভিদ খুব সহজেই মাটিতে কিংবা ছোট টবে পুদিনা চাষ করা যায়। এই গাছ তার সুগন্ধির জন্য বিশেষভাবে জনপ্রিয়। এই গাছের পাতায় রয়েছে ভিটামিন এ, সি আর বি কমপ্লেক্স।

এগুলি ত্বকের যত্নে আর রোগ প্রতিরোধ করতে মুখ্য ভূমিকা গ্রহণ করে থাকে। পাশাপাশি পুদিনা পাতার এসেন্সিয়াল অয়েলের মধ্যে শক্তিশালী জীবাণুনাশক ক্ষমতা রয়েছে যা পাকস্থলীকে শীতল করে এবং অম্লীয় খাবার সামাল দিতে সাহায্য করে। এছাড়াও নিয়মিত পুদিনা পাতা খাওয়া অভ্যাস করলে বুকে কফ জমে পারে না এবং হাঁপানি কমায়।

মাথাব্যথা এবং হতাশা দূর করতেও এই পাতার বিশেষ ভূমিকা রয়েছে।পাশাপাশি স্মৃতিশক্তি বাড়াতে এবং মস্তিষ্কের জ্ঞানী ক্ষমতা বাড়াতেও পুদিনাপাতার ভূমিকা রয়েছে বলে বৈজ্ঞানিকেরা দাবি করে থাকেন।অতএব এই গাছটি বাড়িতে লাগালে যে সহজেই আপনারা নানান ধরনের সুবিধা পাবেন তাতে কোন সন্দেহ নেই।

এর জন্য প্রথমেই বড় কোন গাছ থেকে একটি চাড়া নিয়ে নিতে হবে।তারপর একটি বোতলের মাথার দিক সামান্য ভাবে গোল করে কেটে নিন। এরপর সেটির সাহায্যে একটি নল এবং মাটি ভরে নিন বোতলটির মধ্যে। এবারে চারা গুলিকে বোতলে থাকা ফাঁকফোকরের মধ্যে দিয়েধীরে ধীরে প্রবেশ করান।

এবারে অন্য একটি বোতল কেটে তার মধ্যে জল ভরে ওই নলের মাধ্যমে অন্য চারাগাছ যুক্ত বোতলে পাঠানোর ব্যবস্থা করুন। চারা গাছ লাগানোর প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হয়ে গেলে দিন তিনেক পর্যন্ত অপেক্ষা করলেই ফলাফল পাওয়া যাবে। দেখবেন মাত্র তিন দিনের মধ্যেই কেমনভাবে পুদিনা গাছ সৃষ্টি হয়ে গিয়েছে। বিস্তারিত জানার জন্য প্রতিবেদন এর সঙ্গে থাকা ভিডিওটি দেখে নিতে পারেন।।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button