ই-শ্রম কার্ডের জন্য কাদের একাউন্ট থেকে কাটবে 330 টাকা? কাদের কাটবে 12 টাকা? জেনে নিন খুঁটিনাটি।

নিজস্ব প্রতিবেদন:-করোনা চোখ খুলে দিয়েছে আপামর দেশবাসীর। এমতাবস্থায় প্রতিটি দেশবাসী নিজেদের জীবনকে সুরক্ষিত করতে অতি অবশ্যই জীবনবীমার দিকে পা বাড়াচ্ছেন। কিন্তু কোন জীবনবীমা আপনাকে সব থেকে বেশি সুরক্ষা প্রদান করতে পারবে সে ব্যাপারেও থাকছে একটা গভীর সংশয়।

তবে এক্ষেত্রে আপনি প্রধানমন্ত্রী জীবন জ্যোতি বীমা সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করতে পারেন নিশ্চিন্তে।সেই অর্থে প্রধানমন্ত্রী বিশেষ কয়েকটি প্রকল্প জারি করেছে যেমন প্রধানমন্ত্রী সুরক্ষা বীমা যোজনা এবং প্রধানমন্ত্রী জীবন বীমা যোজনা এই দুটি প্রকল্পের মাধ্যমে আপনারা এক্সিডেন্টাল ক্ষতিপূরণ পেয়ে যাবেন 2 লক্ষ টাকা করে কিন্তু এক্ষেত্রে আপনাদের কে বাশি কিছু টাকা বিনিয়োগ করতে হবে ।

কাদের ক্ষেত্রে 330 টাকা করে কাটা হবে এবং কাদের ক্ষেত্রে প্রতি বছর 12 টাকাটা হবে তা জানানো হলো আজকের প্রতিবেদনের মাধ্যমে। ।এক নজরে দেখে নিন এই জীবন বীমার সুবিধা গুলি কি কি পাশাপাশি কারা এর জন্য আবেদন করতে পারবে।এই বিমা যোজনায় কোনও কারণে পলিসি হোল্ডারের মৃত্যু(স্বাভাবিক বা দূঘটনা) হলে তাঁর পরিবার ২ লক্ষ টাকা পাবে।

১৮-৫০ বছরের কোনও ব্যক্তি এই বিমা যোজনা করতে পারবেন। প্রধানমন্ত্রী জীবন জ্যোতি বিমা যোজনার সুবিধা নিতে পলিসি হোল্ডারকে বছরে ৩৩০ টাকা প্রিমিয়াম দিতে হবে। মনে রাখতে হবে, এই দুই পলিসি নির্দিষ্ট মেয়াদ বিশিষ্ট বিমা। কেবল এক বছরের জন্যই ভ্যালিড থাকে এই পলিসি।

এছাড়াও আরেকটি রয়েছে প্রধানমন্ত্রী সুরক্ষা বীমা যোজনা এ ক্ষেত্রে আপনারা দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত হলে 2 লক্ষ টাকা হিসেবে ক্ষতিপূরণ পেয়ে যাবেন । এক্ষেত্রে আপনাকে প্রতি বছর 12 টাকা করে বিনিয়োগ করতে হবে সরকারি খাতে । এবং এই বিনিয়োগ করার জন্য আপনাকে ব্যাংকে যাওয়ার প্রয়োজন নেই কারণ আপনার ব্যাংকের একাউন্টে থেকে অটোমেটিকলি 12 টাকা করে প্রতিবছর কেটে নেওয়া হবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button